Online MPO Application | শিক্ষক এমপিও আবেদন: কোথায় করবেন?

Advertisement

Online Teacher MPO Application

Online MPO Application – অনলাইন শিক্ষক এমপিও আবেদন: কখন, কোথায় ও কীভাবে করবেন?

Online MPO Application – অনলাইন শিক্ষক এমপিও আবেদন করতে, www.emis.gov.bd ওয়েবসাইটে Online Application ফরম পূরণ করতে হবে।

MPO কী?

MPO হলো Monthly Pay Order এর সংক্ষিপ্ত রূপ। MPO ভুক্ত স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও কর্মচারী গণের প্রতিমাসের বেতন-ভাতার আদেশ কে MPO বলে।

Online MPO – অনলাইন এমপিও কী?

Online MPO হলো এমপিও ভুক্তির ডিজিটাল ভার্সন। কোন শিক্ষক যখন এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ পান, তখন তাঁর বেতন-ভাতা প্রাপ্তির লক্ষ্যে অনলাইনে আবেদনই হলো  Online MPO ।

আগে যেখানে বেতন-ভাতা প্রাপ্তির লক্ষ্যে, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে স্বশরীরে , প্রয়োজনীয় কাগজ-পত্র জামা দিয়ে আবেদন করতে হতো, এখন তা নিজ প্রতিষ্ঠান থেকে অনলাইনে করা যায়।

Online MPO এর মাধ্যমে শুধু এমপিওভুক্ত শিক্ষক গণের বেতন-ভাতার আবেদনই নয়, বরং এমপিওভুক্ত শিক্ষকের নাম, জন্ম তারিখ, পদবী সংশোধন সহ উচ্চ স্কেল যেমন-বিএড স্কেল, সিনিয়র স্কেল, সহকারী অধ্যাপক স্কেল সহ যাবতীয় এমপিওভুক্তির কাজ সহজে করা যায়।

এমপিও ভুক্তির প্রক্রিয়াকে সহজ ও বিকেন্দ্রীকরণ করা এবং এমপিও ভুক্তিকে দূর্নীতি মুক্ত রাখাই এই প্রক্রিয়ার প্রধান লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য।

Online MPO Application – অনলাইন এমপিও আবেদন কী?

Online MPO Application হলো তথ্য-প্রযুক্তির ডিজিটাল মাধ্যম ব্যবহার করে অনলাইনে এমপিও ভুক্তির জন্য আবেদন।

এই আবেদন নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বসে ইন্টারনেটযুক্ত কম্পিউটার ব্যবহার করে সহজে ও কম সময়ের মধ্যে করা যায়।

অনলাইন এমপিও আবেদন করতে কাউকে কোন ফিস বা অর্থ প্রদান করতে হয় না।

কেবলমাত্র ইন্টারনেট ও কম্পিউটার ব্যবহারে সামান্য দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা থাকলে, খুব দ্রুততার সাথে অনলাইনে এমপিও আবেদন যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে সাবমিট করা যায়।

Online MPO Application – অনলাইন এমপিও আবেদন কখন করবেন?

Online MPO Application – অনলাইন এমপিও আবেদন করার সঠিক সময় বলা একটু কঠিন। এমপিও ভুক্তির মাসের দশ তারিখের মধ্য এমপিও আবেদন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার (USEO) কাছে প্রেরণ করতে হয়।

ধরুন, ২০১৯-২০ অর্থবছরের জুলাই মাসের এমপিওভুক্তির জন্য সবশেষ উক্ত মাসের দশ তারিখ পর্যন্ত অনলাইনে এমপিও আবেদন করা যাবে।  পরে আবেদন করলে পরের এমপিওর জন্য তা রেখে দেওয়া হবে।

এ বিষয়ে সঠিক ও হালনাগাদ তথ্য জানতে, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এর সাথে যোগাযোগ করুন।

Online MPO Application – অনলাইন এমপিও আবেদন কোথায় করবেন?

Online MPO Application – স্কুল, কলেজের অনলাইন এমপিও আবেদন করতে EDUCATION MANAGEMENT INFOMATION SYSTEM (EMIS) এর ওয়েবসাইটে যেতে হবে। এটি শিক্ষা মন্ত্রনালয় এর অধীনস্ত একটি প্রতিষ্ঠান।

  • EMIS এর হোমপেজ এর ঠিকানা http://emis.gov.bd/EMIS

মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তর অধিন মদ্রাসা শিক্ষক কর্মচারীদের এমপিও ভুক্তির জন্য, MEMIS সেল এ আবেদন করতে হবে।

  • MEMIS এর হোমপেজ এর ঠিকানা: http://www.memis.gov.bd/Home

Online MPO Application – অনলাইন এমপিও আবেদন করতে কোন ডকুমেন্টগুলো লাগবে?

Online MPO Application – অনলাইন এমপিও আবেদন করতে শিক্ষকের ছবি, জাতীয় পরিচয়পত্র, মোবাইল নম্বর, শিক্ষাগত যোগ্যতার সকল সনদ প্রয়োজন হবে।

শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার মেধা তালিকা, নিয়োগ ও যোগদানপত্র সহ এ সংক্রান্ত সকল রেজুলেশন, প্রতিষ্ঠানের বোর্ড পরীক্ষার ফলাফল সহ প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট গুলোর প্রয়োজন হবে।

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টগুলো কম্পিউটার স্ক্যানারে স্ক্যান করে উপযুক্ত ফরম্যাটে সংরক্ষণ করতে হবে।

এমপিওভুক্তির জন্য Online Application ফরম পূরণ করার সময় উল্লেখিত ডকুমেন্ট গুলোর স্ক্যান কপি যথাস্থানে সংযুক্ত করতে হবে।

কোন কোন ডকুমেন্ট উক্ত আবেদনে প্রয়োজন হবে তা জেনে আগে থেকে প্রস্তুতি নিন।

এ বিষয়ে আরো জানার থাকলে সংশ্লিষ্ট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এর সাথে যোগাযোগ করা যেতে পারে।

EMIS MPO Application Institute Head Login – এমপিও আবেদনে প্রতিষ্ঠান প্রধান এর লগইন প্রক্রিয়া

Online MPO Application – অনলাইন এমপিও আবেদন করতে, প্রতিষ্ঠান প্রধানকে প্রথমত EMIS এর হোমপেজ এর ঠিকানা, http://emis.gov.bd/EMIS ওয়েবসাইটে যেতে হবে।

ইন্টারনেট সংযুক্ত কম্পিউটার এর ব্রাউজারের অ্যাড্রেসবারে ঠিকানাটি লিখে কিবোর্ডের Enter বাটন চাপুন। ব্রাউজারে EMIS এর হোমপেজ লোড হলে, নেভিগেশন মেন্যুতে Login লেখা লিংকটি কে খুঁজে বের করে ক্লিক করুন। অথবা http://emis.gov.bd/EMIS/MPO ঠিকানা কপি করে ব্রাউজারের অ্যাড্রেসবারে পেস্ট করুন।

EMIS single Sign-on পাতাটি ব্রাউজারে লোড হলে, নিচের ছবির মত সাইন ইন পেজ আসবে।

Online Teacher MPO Application Login

উপরের ছবির মত সাইন ইন পেজ আসলে দেখবেন সেখানে দুটি বক্স আছে। একটি Username (ইউজারনেম) পরেরটি Password (পাসওয়ার্ড)।

প্রতিটি এমপিও ভুক্ত প্রতিষ্ঠান প্রধানদের স্ব-স্ব অঞ্চলের পরিচালক (কলেজের ক্ষেত্রে), আর স্ব-স্ব জেলা শিক্ষা অফিসার (স্কুলের ক্ষেত্রে) এর নিকট হতে প্রাথমিক পাসওয়ার্ড সংগ্রহ করতে হবে।

আর ইউজারনেম হবে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের EIIN নম্বর। তবে এর আগে MPO_ যুক্ত করতে হবে। যদি কোন প্রতিষ্ঠানের EIIN নম্বর হয় 111111, তাহলে এর ইউজারনেম MPO_111111 হবে।

এবার ইউজারনেম ও পাসওয়ার্ড দিয়ে সাইন ইন করুন।

প্রথমবার সাইন ইন করার পর নিরাপত্তার জন্যে, প্রাপ্ত প্রাথমিক পাসওয়ার্ড অবশ্যই পরিবর্তন করতে হবে।

এখানে সঠিক ইউজার নেম ও পাসওয়ার্ড না দিলে এরর দেখাবে, পরবর্তী ধাপে যেতে পারবেন না। তাই সঠিক তথ্য দিয়ে সাইন ইন করুন।

বিঃ দ্রঃ– প্রতিষ্ঠানে ইউজারনেম ও পাসওয়ার্ড সম্পর্কীত বিস্তারিত তথ্য জানতে এখানে ক্লিক করুন

সাইন ইন সফল হলে উক্ত প্রতিষ্ঠানের জন্য প্রযোজ্য একটি ড্যাশবোর্ড দেখতে পাবেন।

উল্লেখ্য, এখনে যে শিক্ষক বা কর্মচারীর এমপিও ভুক্তির জন্য আবেদন করবেন, সে শিক্ষক-কর্মচারীকে আগে থেকে EMIS Cell এ নিবন্ধিত হতে হবে। (নিচে নতুন এমপিও ভুক্তির জন্য, শিক্ষক-কর্মচারীর নিবন্ধন প্রক্রিয়া সম্পর্কে আলোচনা  পড়ুন)

এবার প্রতিষ্ঠান প্রধান HRM module সাইন ইন করে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক-কর্মচারীকে নির্বাচন করে, বিভিন্ন ধাপ অনুসরণ করে প্রয়োজনীয় তথ্য ও ডকুমেন্ট সংযুক্ত করে, সবশেষে আবেদন সাবমিট করবেন।

অনলাইন এমপিও আবেদন করতে, সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের প্রধান বা উক্ত প্রতিষ্ঠানের তথ্য-প্রযুক্তির জ্ঞান ও দক্ষতা সম্পন্ন কোন শিক্ষকের সহায়তায় এ আবেদন করতে হবে।

Online New MPO Application Registration – নতুন এমপিও ভুক্তির জন্য নিবন্ধন প্রক্রিয়া

প্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক নতুন শিক্ষক-কর্মচারীর এমপিও আবেদন করার পূর্বে, সংশ্লিষ্ট শিক্ষক-কর্মচারীকে EMIS Cell এ নিবন্ধন করতে হবে।

নতুন এমপিও ভুক্তিতে নিবন্ধনের জন্য, http://emis.gov.bd/EMIS/human-resource ঠিকানায়, EMIS Online Registration পাতায় স্কুল/কলেজ এর নিবন্ধন লিংকে ক্লিক করুন।

বেসরকারী স্কুল শিক্ষক নিবন্ধনের জন্য এখানে ক্লিক করুন

বেসরকারী কলেজ শিক্ষক নিবন্ধনের জন্য এখানে ক্লিক করুন

এমপিওভুক্ত স্কুল অথবা কলেজের কোন শিক্ষক কর্মচারীর এমপিও আবেদনে জন্য উপরোক্ত লিংকে ক্লিক করুন।

ব্রাউজারের ভিন্ন ট্যাবে শিক্ষক রেজিস্ট্রেশন ফরম লোড হলে, নিচের ছবির মত একটি ফরম দেখতে পাবেন। (এখানে স্কুল শিক্ষকের নিবন্ধন ফরমের চিত্র প্রদর্শিত হয়েছে। কলেজ শিক্ষকের নিবন্ধন ফরমও একই রকমের)

Online Teacher New MPO Application Registration Form

উপরোক্ত ছবির মত বেসরকারী স্কুল শিক্ষক নিবন্ধন ফরমে কতগুলো ফাঁকা টেক্স বক্স ও সিলেক্ট বক্স দেখতে পাচ্ছেন।

এখানে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক ও প্রতিষ্ঠানের সঠিক তথ্য দিয়ে দিতে হবে। শিক্ষকের ছবি ও নিয়োগ/যোগদান পত্রের ডকুমেন্ট সংযুক্ত করে, সবশেষে Submit বাটনে ক্লিক করে নিবন্ধন ফরমটি, প্রতিষ্ঠান প্রধানের নিকট জমা দিতে হবে।

প্রতিষ্ঠান প্রধান শিক্ষক কর্মচারীর নিবন্ধন প্রক্রিয়া অনুমোদন ও সম্পন্ন করবেন।

নিবন্ধনের সময় নিবন্ধনকারী বিভিন্ন তথ্যের সাথে, শিক্ষকের ছবি ও নিয়োগ-যোগদানের ডকুমেন্ট সংযুক্ত করতে হবে। তাই আগে থেকে সকল তথ্য ও ডকুমেন্ট সংগ্রহ করে হাতের কাছে রাখুন।

Online MPO Application – অনলাইন এমপিও আবেদন প্রেরণ করবেন কীভাবে?

এবার নতুন কোন শিক্ষকের এমপিওভুক্তির জন্য প্রতিষ্ঠান প্রধান, প্রতিষ্ঠানের HRM ড্যাশবোর্ডে ঢুকে সংশ্লিষ্ট শিক্ষককে নির্বাচন করবেন।

কোন নতুর শিক্ষকের এমপিও ভুক্তি বা স্কেল প্রাপ্তির বা অন্যকিছুর জন্য, সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের লিংকটির উপর ক্লিক করুন।

কাঙ্খিত পদের নতুন এমপিওভুক্তি বা অন্য যে কোন বিষয়ে জন্য ক্লিক কৃত পাতাটি ব্রাউজারে ওপেন করুন।

পাতাটি ওপেন হলে সেখানে প্রয়োজনীয় তথ্য লিখে ও সংযুক্ত করে সবশেষে Submit বাটনে ক্লিক করে তথ্য প্রেরণ করতে হবে।

এখানে তথ্য প্রদানের ক্ষেত্রে যে সকল স্থানে লাল তারকা (×) চিহ্ন আছে, সেই সকল তথ্য দেওয়া বাধ্যতামূলক। লাল তারকা (×) চিহ্নিত তথ্যগুলো পূরণ না করে Submit বাটনে ক্লিক করে তথ্য প্রেরণ করা যাবে না। তাই এ বিষয়ে সতর্ক থাকুন।

কোন আবেদন Submit বাটনে ক্লিক করে সফলভাবে তথ্য প্রেরণ করা গেলে, তা সংশ্লিষ্ট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার (স্কুলের ক্ষেত্রে) এর দপ্তরে প্রেরিত হবে।

এখানে যাচাই-বাছাই শেষে সঠিক ও সম্পূর্ণ আবেদন পরবর্তীতে প্রেরিত হবে জেলা শিক্ষা অফিসার এর দপ্তরে।

এরপর এখানকার যাচাই-বাছাই শেষে তা প্রেরিত হবে আঞ্চলিক উপ-পরিচালক এর দপ্তরে। এখানে থেকে যাচাই-বাছাই শেষে প্রোগ্রামার এর হাত ঘুরে তা EMIS Cell এ নথিভুক্ত হবে।

আবেদনের যে কোন পর্যায়ে সঠিক তথ্য ও ডকুমেন্টের অভাবে আবেদনটি রিজেক্ট বা ফেরত পাঠানো হতে পারে।

তাই সঠিক তথ্য ও প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সংযুক্ত করতে ভুলবেন না।

মার্চ/২০২০ মাসের এমপিও আবেদন (স্কুল, কলেজ হতে) পাঠানোর শেষ সময়: ১০ মার্চ ২০২০ ইং (পূনঃ নির্ধারিত)।

মার্চ/২০২০ মাসের এমপিও আবেদন নিষ্পত্তি করার পূনঃ নির্ধারিত সময়সীমা সম্পর্কে, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর এর বিজ্ঞপ্তি দেখুন এখানে ক্লিক করে

MEMIS ওয়েবসাইটে Madrasah Teacher MPO Application করবেন কীভাবে?

MEMIS: Madrasah Education Management Information System হলো, মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তর অধিভূক্ত একটি প্রতিষ্ঠান।

MEMIS সেলে দেশের সকল এমপিও ভুক্ত মাদ্রাসা সমূহের শিক্ষক কর্মচারীর এমপিও ভুক্তির লক্ষ্যে আবেদন করা হয়।

নতুন নিয়োগ প্রাপ্ত শিক্ষক-কর্মচারীর এমপিওভুক্তি, সিনিয়র স্কেল, উচ্চতর স্কেল, নাম, বয়স, জন্মতারিখ সংশোধন সহ এমপিওভুক্তির সকল কার্যক্রম পরিচালনা করে এমইএমআইএস সেল।

  • MEMIS হোমপেজ: http://www.memis.gov.bd/Home
  • Online Application: http://oa1.memis.gov.bd:8083
  • হেল্প লাইন : ০২-৪১০৩০১৯৮, ০২-৪১০৩০১৯৭ (সকাল ৯ঃ৩০ হতে বিকাল ৫ঃ০০)
  • ফেসবুক পেজ: https://web.facebook.com/MEMIS

মাদ্রাসা শিক্ষক কর্মচারীর এমপিও আবেদন সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে সংযুক্ত লেখাটি পড়ুন।

MEMIS Madrasah MPO Application | মাদ্রাসা শিক্ষক অনলাইন এমপিও আবেদন

Online MPO Helpline – অনলাইন এমপিও আবেদনে সাহায্য

স্কুল, কলেজের Online MPO Application করতে, কারিগরি কোন প্রকার সমস্যা হলে, সমস্যা সমাধানে আপনার অঞ্চলের Online MPO Helpline এ যোগাযোগ করতে পারেন।

এমপিও নীতিমালা, পাসওয়ার্ড ও সফটওয়ার গত সমস্যা সমাধানে উক্ত সাহায্য কেন্দ্র থেকে সাহায্য নিতে পারেন।

Online MPO Application Helpline এর ইমেইল ও ফোন নম্বর পেতে এখানে ক্লিক করুন

বিঃ দ্রঃ– সকল ক্ষেত্রে হালনাগাদ তথ্য পেতে, আপনার উপজেলার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এর সাথে যোগাযোগ করুন।

যদি আপনি এমপিও ভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারী হন, তাহলে নিচের লেখাগুলো আপনার প্রয়োজন হতে পারে-

Online MPO Application – অনলাইন এমপিও আবেদন সম্পর্কীত লেখায় কোন প্রকার ভুল-ত্রুটি বা তথ্যে অসঙ্গতি থাকলে, তা আমাদের মন্তব্য করে জানান।

আর লেখাটি অন্যের জন্য প্রয়োজনীয় মনে করলে, ফেসবুক ও টুইটারে শেয়ার করে সকলকে জানিয়ে দিন।

এ বিষয়ে কোন কিছু জানার থাকলে, প্রশ্ন করতে পারেন।

Share This:

38 মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।