প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফল নভেম্বরের শেষ সপ্তাহে

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফল নভেম্বরের শেষ সপ্তাহের মধ্যে প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্তকর্তা।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফল নভেম্বরের শেষ সপ্তাহের মধ্যে

দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হবে ২০২২ সালের নভেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহের মধ্যে।

২২ নভেম্বর ২০২২ খ্রি. তারিখে, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান প্রাথমিক নিয়োগ রেজাল্ট সম্পর্কে এ কথা জানান।

এর আগে প্রাথমিকের নিয়োগ ফল নভেম্বরের ২৪ তারিখের মধ্যে প্রকাশ করার কথা জানিয়েছিলেন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা, আগামী সপ্তাহের মধ্যে প্রাথমিকের নিয়োগের চুড়ান্ত ফলাফল প্রকাশের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের তিন ধাপে লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীরা ধাপ ভিত্তিক মৌখিক পরীক্ষা অংশগ্রহণ করেন।

তবে ধাপে-ধাপে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হলেও, নিয়োগের চুড়ান্ত ফলাফল একসাথে প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

তিন ধাপে লিখিত পরীক্ষা উত্তীর্ণ হয়েছেন মোট ১ লাখ ৫১ হাজার ৮৮৫ জন প্রার্থী। প্রায় ৩২ হাজার পদে তিন ধাপে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগ প্রদান করা হবে।

তবে প্রাথমিক নিয়োগে পদ সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে না বলে প্রাথমিক অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখিত ৩২ হাজার ৫৭৭ জনকে সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগ প্রদান করা হবে।

উল্লেখ্য, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় আবেদন করেন ১৩ লাখ ৯ হাজার ৪৬১ প্রার্থী। এর মধ্যে ১ম ধাপে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন ৪০ হাজার ৮৬২ জন, ২য় ধাপে ৫৩ হাজার ৫৯৫ এবং ৩য় ধাপে ৫৭ হাজার ৩৬৮ জন প্রার্থী উত্তীর্ণ হন।

আরো দেখুন:

DPE Notice (www.dpe.gov.bd) Primary Notice দেখুন

সরকারি ছুটির তালিকা ২০২৩ (জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ছুটির প্রজ্ঞাপন)

প্রাইমারি সহকারী শিক্ষক নিয়োগ রেজাল্ট ২০২২ কবে? জানালো প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়

প্রাইমারি স্কুলের সহকারি শিক্ষক নিয়োগের রেজাল্ট নভেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহের মধ্যে প্রকাশের কথা জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা।

সম্প্রতি (২২ নভেম্বর) প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগের রেজাল্ট প্রকাশের তারিখের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার চূড়ান্ত ফলাফল বুয়েটের মাধ্যমে তৈরী করা হচ্ছে। দেশের ৬২ জেলায় আয়োজিত মৌখিক পরীক্ষার ফলাফল বুয়েটে পাঠানো হয়েছে।

২৪ নভেম্বরের মধ্যে ফলাফল প্রকাশ করার চিন্তাভাবনা থাকলেও, কাজ শেষ করতে দেরি হওয়ায় নভেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহে প্রকাশের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

প্রাথমিক নিয়োগের পদ সংখ্যা বাড়ছে না। পদ সংখ্যা বাড়াতে গেলে মন্ত্রণালয় থেকে সিদ্ধান্ত আসতে হবে। সেটি আসেনি বলে পদ বাড়ছে না।

তবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় বা প্রাথমিক অধিদপ্তর থেকে, প্রাথমিকের নিয়োগ রেজাল্টের তারিখ সম্পর্কে দাপ্তরিকভাবে কোন তথ্য প্রকাশ করা হয়নি।

আমরা এ বিষয়ে দাপ্তরিকভাবে কোন তথ্য প্রকাশ হলে, আমরা দ্রুত তা জানিয়ে দিব। তাই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগের চুড়ান্ত ফলাফল জানতে প্রতিবেদনটিতে যুক্ত থাকুন।

আরো জানুন:

প্রাথমিকে পোষ্য কোটা কারা পাবে? ব্যাখ্য দিল প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর

Primary Education Ministry Notice, Gazette, Office Order

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটির তালিকা ২০২২ (২০ এপ্রিল সংশোধিত)

তথ্যসূত্র-

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর

Share This:

15 Comments

    1. সম্মানিত স্যার, পদ সংখ্যা বাড়ানোর জন্য অনুরোধ করছি যেহেতু 2023 সাল থেকে বিদ্যালয়গুলোকে ১ শিফটে করার মতো ভালো উদ্যোগ নিচ্ছেন তাই প্রতিটি বিদ্যালয় ভালোভাবে পরিচালনার জন্য কমপক্ষে ৮ জন করে শিক্ষক প্রয়োজন তাছাড়া প্রধান শিক্ষক পদে অনেক শিক্ষক প্রমোশনে চলে যাবে। এমতাবস্থায় 60k+শিক্ষক নিয়োগ দিলেও আরও অনেক পদ ফাকা থেকে যাবে।

  1. প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে বিভিন্ন কোটা হিসাব করার কারনে, সাধারন মেধাবীরা যেমন নিয়োগবঞ্চিত হচ্ছে তেমনি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও যোগ্য শিক্ষকদের নিকট থেকে শিক্ষা গ্রহনের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।
    সব কোটা বাদ দিয়ে কেবল মেধার ভিত্তিতে নিয়োগ না দিলে, এ জাতির ভবিষ্যৎ অন্ধকার।
    উন্নত দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষন করে এরা কি কিছুই শিখেনি।
    এই কোটা চিন্তা করে, বাংলাদেশ চললেও, পৃথিবী চলে উদ্ভাবনী মেধার মাধ্যমে।

    একারনেই, আমরা সম্প্রতি দেখতে পাচ্ছি, ভারতের শিক্ষার্থীরা গুগল নিয়ন্ত্রণ করছে, আর বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা মধ্যপ্রাচ্যের মরুভূমিতে উট চড়াচ্ছে।

  2. প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে বিভিন্ন কোটা হিসাব করার কারনে, সাধারন মেধাবীরা যেমন নিয়োগবঞ্চিত হচ্ছে তেমনি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও যোগ্য শিক্ষকদের নিকট থেকে শিক্ষা গ্রহনের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।
    সব কোটা বাদ দিয়ে কেবল মেধার ভিত্তিতে নিয়োগ না দিলে, এ জাতির ভবিষ্যৎ অন্ধকার।
    উন্নত দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষন করে এরা কি কিছুই শিখেনি।
    এই কোটা চিন্তা করে, বাংলাদেশ চললেও, পৃথিবী চলে উদ্ভাবনী মেধার মাধ্যমে।

    একারনেই, আমরা সম্প্রতি দেখতে পাচ্ছি, ভারতের শিক্ষার্থীরা গুগল নিয়ন্ত্রণ করছে, আর বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা মধ্যপ্রাচ্যের মরুভূমিতে উট চড়াচ্ছে।

  3. শুন্য পদের নিয়োগ দিলে অনেক ভালো হবে স্যার কারন যাদের বয়স শেষ তারা অনেকেই আছে এই রেজাল্ট এর অপেক্ষায়
    আর যারা রিটার্ন এ টিকছেন সবাই গ্রাজুয়েশন কমপ্লিট, তাই শুন্য পদের নিয়োগ দিলে অনেকের রিজিকের ফায়সালা হবে।

  4. বাংলাদেশই এমন দেশ যে বার বার ডেট পাল্টাচ্ছে,নির্ধারিত ডেট একবারই দিলে ভালো হয়।অনেকেই অপেক্ষার প্রহর গুনছে চিন্তায়।ডিজিটাল তো সবকিছুতেই ডিজিটাল করলেই হয়।

    1. খুব সম্ভবত মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের মধ্যে সমন্বয়হীনতার জন্য প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ রেজাল্ট প্রকাশে এমনটা হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।